My Journey to Google: Part-1

আমার গুগলে যাত্রার শুরুটা অন্যদের চেয়ে কিছুটা ভিন্ন।

অন্যান্য যেকোনো সাধারণ দিনের মতো অফিসে বসে কাজ করছিলাম।

স্বভাবতই যেকোনো সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারেরই দেখা যায় যে কাজ করার সময় ব্রাউজার খোলাই থাকে Google বা Stackoverflow তে কিছু না কিছু প্রোগ্রামিং রিলেটেড সার্চ করার জন্যে। আমি যেটা করি তা হল প্রথমে গুগল সার্চ করি তারপরে প্রথম যে Stackoverflow এর রেজাল্টটা থাকে সেটাতেই সাধারণত ঢুকে দেখি।

তো সেদিনও কিছু একটা কারণে মনে হল যে এই dependency injection ওয়ার্ডটা অনেক শুনেছি কিন্তু কখনো ভালো করে বুঝে ওঠা হয়নি, তো দেখি যে এটা আসলে কি। সার্চ করার পরপরই যেটা খেয়াল করলাম সেটা হল আজকের সার্চ রেজাল্টের উইন্ডোটা একটু আলাদা। (নিচের উইন্ডোটার মতো)

সেখানে লেখা দেখাচ্ছিল যেঃ You’re speaking our language. Up for a challenge?

আর তিনটা অপশন ছিল যা হলঃ

  1. I want to play
  2. No thanks
  3. Don’t show me this again

Note: তার মানে এই না যে যেকোনো কেউ এই ওয়ার্ড টা লিখে সার্চ করলেই তাকে এই invitation টা দেখাবে। গুগল সাধারণত যেকোনো ইউজারের সার্চ হিস্ট্রিই ট্র্যাক করে। তো গুগলের আল্গরিদম এর হয়তো মনে হয়েছে যে এই ইউজার হয়তো কোনভাবে প্রোগ্রামিং এর ব্যাপারে আগ্রহী, সেকারণেই হয়তো আমার এই invitation টা পাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছিল।

প্রথমেই যেটা আমার মাথায় আসল তা হল এটা আবার কোন স্প্যাম নাকি। তাই উইন্ডোটা খোলা রেখেই ওই মেসেজটা লিখে আরেকটা উইন্ডোতে সার্চ দিলাম যে এটা আসলে কি।

পড়ে যা বুঝলাম তার সারমর্ম হল এটার নাম Google foobar challenge এবং এটা গুগল এর একটা secret recruitment tool এর মতো। Challenge টা হল একটা গেম, যেখানে ৫ টা লেভেল থাকে এবং লেভেলগুলো পার করতে হয় বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রব্লেম সল্ভ করার মাধ্যমে (ACM ICPC এর প্রব্লেম এর মতো) । বিভিন্ন লেভেলে বিভিন্ন সংখ্যক প্রব্লেম থাকবে এবং লেভেল বাড়ার সাথে সাথে প্রব্লেমের difficulty ও বাড়তে থাকবে।

পড়ে এটাও বুঝলাম যে যদি কেউ ৪ লেভেল পর্যন্ত পার করতে পারে তাহলে গুগলের একজন রিক্রুটার তার সাথে যোগাযোগ করতে পারে এবং গুগলের ইন্টারভিউ এর জন্যে সরাসরি আমন্ত্রণ করতে পারে। এই ফুবারের মাধ্যমে অনেক আগে একজন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া সদ্য পাস করা একজন ছেলে গুগলে চাকরি পেয়েছিল কিন্তু তার পরে অনেকেই ইন্টারভিও পর্যন্ত গিয়েছে তবে তার পরে আর জানা যায়নি।

তো আমি ভাবলাম যে যদি ইন্টারভিউ পর্যন্ত ও যাওয়া যায় সেটাও বা খারাপ কি। বলা বাহুল্য যে এর আগে আমি অনেকবার গুগলে CV drop করেছি কিন্তু কখনোই কোন কল পাইনি। কারণ গুগলে লাখ লাখ অ্যাপ্লিকেশান জমা পড়ে প্রতি বছর আর এর মধ্যে ইন্টারভিউ এর ডাক পাওয়া খুবই কঠিন।

যেহেতু অফিসে ছিলাম তাই শুধু invitation টা accept করেই রেখে দিলাম যে বাসায় গিয়ে ভালো করে দেখব। বাসায় এসে দেখলাম যে সেখানে শুধুমাত্র জাভা বা পাইথন ব্যবহার করে প্রোগ্রামিং প্রব্লেমগুলো সল্ভ করা যাবে। যদিও জাভা পারি, অনেকদিন ব্যবহার না করার কারণে খুব একটা ভালো মনে ছিল না। তাই ভাবলাম যে অনেকদিন থেকেই পাইথন ভালো করে শিখব শিখব করছি কিন্তু শেখা হচ্ছে না, তাই পাইথন দিয়ে যদি সল্ভ করি তাহলে পাইথনটাও শেখা হয়ে যাবে আর বোনাস হিসেবে ইন্টারভিউ এর ডাক পাওয়ার সুযোগও হয়ে যেতে পারে।

ফুবারের যে জিনিসটা ভালো ছিল তা হল একটানা সব লেভেল সল্ভ করতে হবে এমন না। শুধু যখন আমার সুবিধা হবে তখন আমি একটা করে প্রশ্ন request করতে পারব এবং সেটার জন্যে একটা টাইম লিমিট দেওয়া থাকবে যার মধ্যে প্রশ্নটি সল্ভ করতে হবে। প্রথম দিকের প্রশ্ন গুলোতে ২-৩ ঘণ্টার মতো পাওয়া যায়। তবে পরেরগুলো এতটাই কঠিন থাকে যে তার টাইম লিমিট ২-৩ সপ্তাহ পর্যন্তও থাকে। (আমার কাছে সবচেয়ে কঠিন যে প্রশ্নটি মনে হয়েছিল সেটি সল্ভ করতে আমার ১২ দিন লেগেছিল)

আমি ফুবারের লেভেল ৩ শেষ করার পরে আমাকে একটা মেসেজ দেখায় যে আমি গুগলে চাকরি করার ব্যাপারে আগ্রহী কিনা, আগ্রহী হলে গুগলের একজন রিক্রুটার আমার সাথে যোগাযোগ করবে। আমি স্বভাবতই হ্যাঁ বলি ও কিছুদিন পরে আমার কাছে একটা কল আসে। তারপরে বিভিন্ন ওপেন পজিশন নিয়ে আমাদের আলোচনা হয় এবং এর পরে শুরু হয় আসল ইন্টারভিউ পর্ব। ইন্টারভিউ ও সেটার প্রস্তুতির ব্যাপারে এর পরের পর্বে লিখব। 😊

এভাবেই গুগল ফুবার এর মাধ্যমে আমার যাত্রার শুরু।

এক দিক দিয়ে বলতে গেলে গুগল নিজেই আমাকে ইনভাইট করেছিল বলেই হয়ত আমি আজ গুগলে যোগ দেওয়ার সুযোগ পেয়েছি। তাই গুগলের সার্চ ইঞ্জিনের প্রতিও আমি এক দিক দিয়ে কৃতজ্ঞ। আবার ভাবতে ভালোই লাগছে যে এই সার্চ টিমেই আমি যোগ দেওয়ার সুযোগ পেয়েছি 😊

For further reading about Google foobar challenge: (link)

Original post: